বিজ্ঞান বিষয়ক ৪০০ টি প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান

● কোন রঙের কাপে চা তাড়াতাড়ি ঠান্ডা হয় = কালো।
● রান্না করার হাড়িপাতিল সাধারণত এলুমেনিয়াম ব্যবহার করা হয় কারণ = এতে দ্রুত তাপ সঞ্চালিত হয়ে খাদ্যদ্রব্য তাড়াতাড়ি সিদ্ধ হয়।
● মটরগাড়ির হেড লাইটে কোন দর্পন ব্যবহার করা হয় = অবতল।
● পৃথিবীর ঘূর্ণনের ফলে আমরা ছিটকে পড়ি না কেন = মধ্যাকর্ষণ বলের জন্য।
● কোন মাধ্যমে শব্দের গতি সবচেয়ে বেশি = কঠিন।
● একক সময়ে শব্দ যে দুরত্ব অতিক্রম করে তাকে বলে = শব্দের গতি।
● বিদ্যুৎ পরিবাহী তাপমাত্রা ও প্রস্থচ্ছেদ অপরিবর্তিত থাকলে দৈর্ঘ্য বাড়ালে রোধে কি ঘটবে = রোধ বাড়বে।
● প্যাসকেলের সূত্রটি প্রযোজ্য = তরল ও বায়বীয় পদার্থের ক্ষেত্রে।
● International System of Unite কে সংক্ষেপে বলে = S.I পদ্ধতি।
● কোন বস্তুর ত্বরণ বলতে কি বুঝায় = সময়ের সাথে বেগ বৃদ্ধির হার।
● নিউটন কী = বলের একক।
● পাত্রে আবদ্ধ তরল পদার্থের কোন অংশে চাপ প্রয়োগ করলে কি ঘটবে = পদার্থের সবদিকে চাপ সমানভাবে সঞ্চালিত হয়।
● দুটি স্বচ্ছ মাধ্যমের বিভেদ তলে আলোকরশ্মির দিক পরিবর্তনের ঘটনাকে বলে = প্রতিসরণ।
● লাল ও সবুজ রং মিশিয়ে কোন রং পাওয়া যায় = হলুদ।
● ডায়নামো কি ?= যান্ত্রিক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তরের যন্ত্র।
● কোন পদার্থ প্রকৃতিতে কঠিন, তরল, বায়বীয় অবস্থায় পাওয়া যায় = পানি।
● চুম্বকের আকর্ষন কোন অংশে বেশি = দুই মেরুতে।
● কোনটি নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস = সূর্যরশ্মি।
● 20° সেন্টিগ্রেড সমান কত ডিগ্রি ফারেনহাইট = 68° F
● পানির তাপমাত্রা 0° থেকে 4°এ উন্নীত হলে পানির ঘনত্ব = বাড়বে।
● কাজের একক কোনটি = জুল।
● স্প্রিং নিক্তি দিয়ে কি মাপা হয় = ওজন।
● স্থির তরলে কোন বস্তুকে নিমজ্জিত করলে সেই বস্তু উপরের দিকে যে লব্ধি বল অনুভব করে তাকে কি বলে = প্লবতা।
● কোনটি জেনেরেটরে উৎপাদিত কারেন্টকে বৃদ্ধি করে = কয়েলে পেঁচ সংখ্যা বৃদ্ধি করে।
● দৈর্ঘ্য প্রসারণ গুনাংক কোন বিষয়ের উপর নির্ভর করে = তাপমাত্রা স্কেল, বস্তুর প্রকৃতি।
● দৃশ্যমান আলোতে কোন রং আলোতে তরঙ্গ দৈর্ঘ্য বেশি হয় = লাল।
● 0° c তাপমাত্রায় এবং স্বাভাবিক চাপে শুল্ক বায়ুতে শব্দের বেগ কত = 332 মিটার/সেকেন্ড।
● শীতকালে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ = কম থাকে।
● আন্তর্জাতিক পদ্ধতিতে তাপমাত্রার একক’কে বলে = কেলভিন।
● সূর্য থেকে হঠাৎ আলো আসা বন্ধ হয়ে গেলে তা আমরা অনুভব করতে পারি কতক্ষণ পর = 8 মিনিট 32 সেকেন
● ছাতার কাপড়ের রং সাধারণ কালো হয় কেন = কালো রং তাপ শোষন করে বলে।
● বৈদ্যুতিক বাল্ব আবিষ্কার করেন কে = টমাস আলভা এডিসন।
● একজন মানুষ কি অবস্থায় পৃথিবীকে সবচেয়ে কম চাপ দেয় = শোয়া অবস্থায়।
● সমুদ্র নীল দেখানোর কারন হলো আপতিত সূর্য রশ্মির = বিক্ষেপন।
● শব্দ বিস্তারের জন্য প্রয়োজন হয় = বায়বীয় মাধ্যমের।
● ন্যানো সেকেন্ড হলো = এক সেকেন্ডের একশত কোটি ভাগের একভাগ।
● শূন্য ঘরের চেয়ে লোক ভর্তি ঘরের শব্দ কম হয় কেন = শূন্য ঘরে শব্দের শোষণ কম হয়।
● সূর্য থেকে পৃথিবীতে শব্দ আসতে সময় লাগে = 8.32 মিনিট।
● যে সর্বোচ্চ শব্দের শ্রুতি সীমার উপর মানুষ বধির হতে পারে তা হলো = 105 ডেসিবেল।
● চাঁদে বা অন্য গ্রহে নিলে বস্তুর কি পরিবর্তন ঘটবে = বস্তুর ভর একই থাকবে কিন্তু ওজন বদলাভে।
● টেলিফোনের আবিস্কারক = আলেকজান্ডার গ্রাহাম বেল।
● সূর্য রশ্মি কি গতিতে গমন করে = সেকেন্ডে 1,86,000 মাইল বেগে।
● “থিউরি অব রিলেটিভিটি” এর উদ্ভাবক কে = আলবার্ট আইনস্টাইন।
● বৈদ্যুতিক বাল্বের ফিলামেন্ট কোন ধাতু দিয়ে তৈরি হয় = টাংস্টেন।
● একটি বৈদ্যুতিক পাখা ধীরে চালালে বিদ্যুৎ খরচ হবে = সমান বা একই হয়।
● রঙ্গিন টেলিভিশন থেকে ক্ষতিকর যে রশ্মি নির্গত হয় = গামা রশ্মি।
● পানিকে বরফে পরিনত করলে এর আয়তন = বাড়ে।
● বর্ণান্ধ লোকেরা কোন রং বুঝতে পারে না = লাল , নীল, সবুজ।
● কোথায় সাঁতার কাটা কম অসাধ্য = সাগরে।
● উষ্ণতার একক কিভাবে পরিমাপ করা হয় = কেলভিন।
● হীঁরা আঁধারে চক চক করে কেন = উচ্চ প্রতিসরাঙ্কের কারনে আলোর প্রতিসরণ ঘটে।
● আবহাওয়ার 90% আদ্রতা বলতে কি বুঝায় = বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ সম্পৃক্ত অবস্থায় 90%।
● ভূমিকম্প মাপার যন্ত্র কি = সিসমোগ্রাফ বা সিসমোমিটার।
● উড়োজাহাজের গতি নির্ণায়ক যন্ত্র = ট্যাকোমিটার।
● কোন যন্ত্র দিয়ে বিদ্যুৎ পরিমাপ করা হয় = অ্যামিটার।
● বাতাসের আদ্রতা পরিমাপ যন্ত্র = হাইগ্রোমিটার।
● ডুবোজাহাজ হতে পানির উপরে কোন বস্তু দেখার জন্য ব্যবহৃত হয় = পেরিস্কোপ।
● পৃথিবীতে সবচেয়ে শক্ত পদার্থ কী = হীরক।
● সেলসিয়াস স্কেলে তাপমাত্রা 0° ডিগ্রি হলে তা ফারেনহাইট স্কেলে হবে = 32 ফারেনহাইট।
● Electric bill is calculated in = kilowatt hour.
● বিদ্যুৎ ও টেলিফোনের তার ঝুলিয়ে টানা হয় কেন = শীতকালে তার ঠান্ডায় সংকুচিত হয়।
● কোন বস্তু যখন সমস্ত আলো শোষন করে তখন তাকে = কালো দেখায়।
● মেঘাচ্ছন্ন আকাশের রাত অপেক্ষাকৃত উষ্ণ হয় কারন = মেঘ মাটি থেকে বায়ুতে তাপের বিকরণে বাধা দেয়।
● দৃশ্যমান আলোর ক্ষুদ্রতম তরঙ্গদৈর্ঘ্য কোন রঙের = বেগুনি।
● “To every action there is an equal and opposite reaction” The theory has given by- = Newton.
● টুথপেস্টের প্রধান উপাদান = সাবান ও পাউডার।
● পানি কত ডিগ্রি তাপমাত্রায় ফুটে = 100°C
● তরল মিশ্র পদার্থ থেকে ছেঁকে ভারী অদ্রবনীয় পদার্থ পৃথক কথার প্রনালীকে বলে = পাতন।
● নাইট্রিক এসিড একটি অনুতে কয়টি পরমাণু থাকে = 5 টি।
● কোন ধাতু পানিতে বাসে = cu
● জিংক সালফেটের সংকেত = Znso4
● অ্যালুমেনিয়ামের যোজনী = 4
● কোনটি তড়িৎ বিশ্লেষণ যোগ্য নয় = চিনি।
● সার হিসেবে কোন পদার্থটি ফসলের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় = ইউরিয়া।
● হ্যালজেন মৌলসমূহের শেষ খোলসে ইলেকট্রনের সংখ্যা কতটি = 5 টি।
● অসস্পৃক্ত হাইড্রোকার্বন কোনটি = ইথিলিন।
● ইথানল জীবানুর উপস্থিতিতে বায়ু দ্বারা জারিত হলে কি পাওয়া যায় = এসিটিক এসিড।
● কোন রঙের কাপে চা তাড়াতাড়ি ঠান্ডা হয় = কালো ।
● সবচেয়ে হালকা মৌল = হাইড্রোজেন।
● দুধে কোন ধরনের এসিড থাকে = ল্যাকটিক এসিড।
● পানিতে কিসের পরিমাণ কমে গেলে মাছ ও অন্যান্য জলজ প্রানী মারা যায় = O2
● তামা ও টিনের মিশ্রণে কি হয় = ব্রোঞ্জ।
● শুকানোর মাধ্যমে খাদ্য সংরক্ষণ করা যায় কারণ = শুষ্ক খাদ্যে আবহাওয়া বিরুপ প্রবাহ বিরাজ করে।
● বায়ু মন্ডলে কোন উপাদান অতিবেগুনি রশ্মিকে শোষন করে = ওজোন।
● ঘর্ঘণ, তাপ, রাসায়নিক ইত্যাদি প্রক্রিয়ায় সহজেই পরমাণু থেকে নির্গত হয় = ইলেট্রন।
● কোন গ্যাস নিজে জ্বলে কিন্তু অন্যকে জ্বলতে সাহায্য করে না = হাইড্রোজেন।
● কচু খেলে গলা চুলকায় কারন কচুতে থাকে = ক্যালসিয়াম অক্সালেট।
● ফরমালিন হলো ফরমালডিহাইডের = 40% জলীয় দ্রবণ।
● কাঁচ তৈরির প্রধান কাঁচামাল হলো = বালি।
● হিমোগ্লোবিনের কাজ কি = অক্সিজেন ও কার্বন ডাইঅক্সাইড বহন করা।
● কোনটি জীবাশ্ম জ্বালানি নয় = বায়োগ্যাস।
● হীরক উজ্জ্বল দেখায় কারন = আলোর সম্পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন।
● সবচেয়ে মুল্যবান ধাতু = প্লাটিনাম।
● এসিড বৃষ্টি হয় বাতাসে = সালফার ডাইঅক্সাইডের আধিক্য।
● গ্যালভানাইজেশন এর কাজে ব্যবহার করা হয় কোন ধাতু = জিংক।
● পানি জমলে আয়তন = বাড়ে।
● মানব দেহে স্বাভাবিক উষ্ণতা কত = 98.4° ফারেনহাইট।
● N.I.P এর পূর্নরূপ কি = Normal Temperature & Pressure.
● পরম শূন্য তাপমাত্রা সমান = 273° সেন্টিগ্রেড।
● এস আই পদ্ধতিতে তাপের একক = জুল।
● একটি বন্ধ ঘরে একটি চালু ফ্রিজের দরজা খুলে রাখলে ঘরের তাপমাত্রা = অপরিবর্তিত থাকবে।
● সি এন জি গাড়ী চলে = অটো চক্রে।
● বাংলাদেশে টিভি সম্প্রচারের ক্ষেত্রে অডিও সিগন্যাল পাঠাতে হয় = ফিকুসেনসী মডুলেশন করে।
● আলট্রাসনোগ্রাফি কি = ছোট তরঙ্গদৈর্ঘ্যের শব্দের দ্বারা ইমেজিং।
● হীরক উজ্জ্বল দেখায় কারন = আলোর সম্পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন ঘটে।
● বর্ষাকালে ভেজা কাপড় শুকাতে দেরি হয় কেন = বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকে।
● তেজস্ক্রিয় পদার্থ নয় = লৌহ।
● শীতকালে ঠোঁট ও গায়ের চামড়া ফেটে যায় কারন = বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতা কম থাকে।
● ডিজিটাল টেলিফোনের প্রধান বৈশিষ্ট্য = ডিজিটাল সিগন্যালে বার্তা প্রেরণ।
● ভূমি থেকে উপরে উঠলে শ্বাসকষ্ট হয় কেন = উপরে বায়ুর চাপ বেশি থাকে।
● গ্রীষ্মকালে আমরা কালো কাপড় পরিধান করি না কেন = কালো কাপড় শরীরের তাপ কে বাহিরে যেতে দেয় না।
● ফ্যান চালালে আমরা ঠান্ডা অনুভব করি কারন = শরীর থেকে বাষ্পীভবনের হার বাড়িয়ে দেয়।
● প্লাস্টার অব প্যারিস বলা হয় = দুই অনু পানিসহযোগে গঠিত ক্যালসিয়াম কার্বনেট।
● উড পেন্সিলের “সীস” হলো = গ্রাফাইট, 2B, 4B, 6B পেন্সিলের শীষেও গ্রাফাইট থাকে।
● শুষ্ক বরফ বলা হয় = হিমায়িত কার্বন ডাইঅক্সাইডকে, ব্যবহৃত হয় স্টেজে ধোয়া সৃষ্টিতে।
● কোনটি সৌর কোষে ব্যবহৃত হয় = ক্যাডসিয়াম।
● পানি ঢেলে কেরোসিনের আগুন নিভানো যায় না কারন = কেরোসিন পানির চেয়ে হালকা।
● অ্যামোনিয়াম সালফেট কি = একটি লবন।
● কাঁচ কি দিয়ে তৈরি = Si02, যার অন্য নাম সিলিকা,
● বালির প্রধান উপাদান কি = সিলিকা।
● কোন জৈববস্তর অসম্পূর্ণ দহনের ফলে কোন গ্যাস তৈরি হয় = কার্বন মনোঅক্সাইড।
● কোন গ্যাসের রং লালচে বাদামী = নাইট্রোজেন ডাইঅক্সাইড।
● এসিড বৃষ্টির জন্য দায়ী = সালফার ডাইঅক্সাইড ও নাইট্রাস অক্সাইড।
● কোন ধাতু সর্বাপেক্ষা হালকা = লিথিয়াম।
● কোন মৌলিক গ্যাস সবচেয়ে ভারী = রেডন, এটি একটি নিষ্ক্রিয় গ্যাস।
● ফ্রেয়ন কার ট্রেড নাম = CFC (রেফ্রিজারেটরে থাকে), ক্লোরোফ্লুরো কার্বন।
● লাফিং গ্যাস কি = No2
● কাপড় কাচার সোডা কোনটি = Na2CO3
● নোবল গ্যাস নয় = ওজন।
● ওয়াটার গ্যাসের প্রধান উপাদানগুলো কি কি = হাইড্রোজেন ও কার্বন-মনোঅক্সাইড।
● টেস্টিং সল্ট – এর রাসায়নিক নাম কি = মনো সোডিয়াম গ্লুটামেট, আজিনামোটো।
● পাস্তুরাইজেশনের মাধ্যমে জীবানুমুক্ত করা হয় = দুধকে।
● প্রানীর মলমূত্র থেকে ব্যাকটেরিয়ার সাহায্যে ফারমেন্টেশন প্রক্রিয়ায় উৎপন্ন হয় = মিথেন।
● রেস্টিফাইড স্পিরিট হলো = 95% ইথাইল এলকোহল + 5% পানি।
● গ্যালভানাইজেশন হলো লোহার উপর = দস্তার প্রলেপ।
● স্যাকারিন প্রস্তুত করা হয় = টলুইন হতে।
● কোন জ্বালানি পোড়ালে প্রধানত সালফার ডাইঅক্সাইড গ্যাস বাতাসে আসে = ডিজেল।
● মৌলিক পদার্থ নয় = ফসফিন।
● কোন ধাতু কে পোড়ালে উজ্জল হলুদ বর্ণের শিখা উৎপন্ন হয় = সোডিয়াম।
● কোন অধাতু বিদ্যুৎ পরিবহন করে = গ্রাফাইট।
● টুথপেস্টে ফ্লোরাইড ব্যবহার করা হয় কেন = এটি দাঁতের ক্ষয়রোধ করে।
● কোনটি কাঁদানে গ্যাস হিসেবে ব্যবহার করা হয় = ক্লোরোপিক্রিন।
● যে ধাতু বিশ্লেষণ করা যায় না তাকে বলে = মৌলিক ধাতু।
● জিরকন, মোনাজাইট, বিউটাইল প্রভৃতির সমন্বয়ে গঠিত হয় = কালো সোনা।
● স্বর্ণের খাদ বের করতে কোন এসিড ব্যবহার করা হয় = নাইট্রিক এসিড।
● মানুষের রক্তের PH কত = 7.4
● CNG এর পূর্নরূপ কি = Compressed Natural Gas.
● PCR এর পূর্নরূপ কি = পলিমার চেইন রিঅ্যাকশন।
● C6H14 এর আইসোমার এর সংখ্যা = 6 টি।
● হাইড্রোজেনের পরমাণু তে কোনটি নেই = ইলেক্ট্রন।
● অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডারে থাকে = তরল কার্বন ডাইঅক্সাইড।
● তরল ধাতু = পারদ।
● H+ আয়ন দ্রবণ্যের ঘনমাত্রা ঋণাত্মক লগারিদমকে কি বলে = pH
● স্টেইনলেস স্টীলে লোহার সাথে কোন ধাতু মিশানো হয় = নিকেল ও ক্রোমিয়াম।
● ভিনেগার = 10% এসিটিক এসিডের জলীয় দ্রবণ।
● “অ্যাকোয়া রিজিয়া” বলতে কি বুঝায় = কনসেনট্রেটেড হাইড্রোক্লোরিক এসিড ও নাইট্রিক এসিডের মিশ্রন।
● দুধের রং সাদা হয় কেন = কার্বোহাইড্রেটের জন্যে।
● মানুষের বুদ্ধির বিকাশ সাধন হয় = 24 বছরে।
● উদ্ভিদের সালোসংশ্লেষণে কাজ করে = ক্লোরোফিল।
● যে বস্তু আলোর সব রং প্রতিফলিত করে তার রং = সাদা।
● জিনের রাসায়নিক গঠন উপাদান কে বলা হয় = DNA
● পাউরুটি পালানোর জন্য কোন ছত্রাকজাতীয় উদ্ভিদ ব্যবহার করা হয় = ঈস্ট।
● কলার চারা লাগানোর সময় পাতা কেটে ফেলা হয় কেন = প্রস্বেদন রোধ করার জন্য।
● ভাইরাস একটি = অকোষীয় জীব।
● শৈবাল কোন জাতীয় উদ্ভিদ = স্বভোজী।
● উদ্ভিদ কোষ থেকে পানি বাষ্পাকারে বের হয়ে যাওয়ার নিয়মকে বলে = প্রস্বেদন।
● যেসব উক্লিয়াসের প্রোটন সংখ্যা সমান কিন্তু ভর সংখ্যা সমান নয়, তাদের বলে = আইসোটোপ।
● যেসব নিউক্লিয়াসের নিউট্রন সংখ্যা সমান কিন্তু ভর সংখ্যা সমান নয়, তাদের বলে আইসোটোন।
● “শিমের বিচি” কোন ধরনের খাদ্য = আমিষ।
● ডিম ও দুধে কোন ভিটামিন নেই = সি।
● “গলগন্ড” রোগ হয় কিসের অভাবে = আয়োডিন।
● পানি বাহিত রোগ = জন্ডিস।
● প্রোটিন তৈরিতে ব্যবহার হয় = অ্যামাইনো এসিড।
● কোন রোগে শরীরের ইমিউনিটি নষ্ট হয় = এইডস্।
● বিলিরুবিন তৈরি হয় = যকৃতে।
● মানবদেহে লোহিত কনিকার আয়ুষ্কাল কতদিন = 120 দিন।
● মানবদেহে কতটি হাড় আছে = 206
● সকল সম্পূরক উদ্ভিদ = স্বভোজী
● সর্বাধিক পটাসিয়ামযুক্ত খাদ্য কোনটি = ডাব।
● হৃদপিন্ডের বন্ধ শিরা বেলুনের সাহায্যে ফুঁলানোকে বলে = এনজিও প্লাস্ট।
● নিউমোনিয়া রোগটি হয় = ফুসফুসে।
● জীবের বংশগতির বৈশিষ্ট্য বহন করে = ক্রোমোজম।
● মানব দেহে বৃদ্ধির জন্য দরকার = আমিষ।
● কোন রোগে মাড়ি দিয়ে রক্ত ও পুঁজ পড়ে = স্কার্ভি।
● রক্তে লোহিত কনিকার কাজ কি = অক্সিজেন বহন করা।
● এইডস্ রোগ দেহের কোন কণিকা ধ্বংস করে = শ্বেত কনিকা।
● মস্তিষ্কের ধমনী ছিঁড়ে রক্তপাত হাওয়াকে বলে = স্ট্রোক।
● সুষম খাদ্যে প্রধানত তিনটি খাদ্য উৎপাদনের অনুপাত = 4:1:1
● আমিষের সহজলভ্য উৎস হলো = চীনাবাদাম।
● বহুকোষী প্রানী নয় = অ্যামিবা।
● ক্যান্সার রোগের প্রধান কারন কি = কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি।
● দেহের কোন অংশে কেটে গেলে রক্ত জমাট বাঁধতে সহায়তা করে = হেপারিন।
● ভিটামিন “এ” এর অভাবে কোন রোগ হয় = রাতকানা।
● কোনটি মশা বাহিত রোগ = ডেঙ্গু।
● ক্লোরোফিল ছাড়া সম্পন্ন হয় না = সালোসংশ্লেষণ।
● এন্টিবায়োটিকের কাজ করে = জীবাণু ধ্বংসে।
● যক্ষ্মা রোগের জীবাণু কে আবিষ্কার করেন = রবার্ট কচ।
● দেহ কোষের পুনরুজ্জীবন ঘটানোর জন্য প্রয়োজন = প্রোটিন।
● ভয় পেলে গায়ের লোম খাড়া হয়ে যায় কোন হরমোনের অভাবে = অ্যাডরেনালিন।
● কোন ভিটামিন ক্ষতস্থান হতে রক্তপড়া বন্ধ করতে সাহায্য করে = ভিটামিন কে।
●কোনটি দেহকোষ নয় = প্রোটিন।
● ক্লোরোফিল অণুর উপাদান কী = ম্যাগনেসিয়াম।
● হিমোগ্লোবিনের কাজ কি = অক্সিজেন ও কার্বন ডাইঅক্সাইড বহন করা।
● কোন রক্তের গ্রুপকে ” সর্বজনীন দাতা” universal donar বলা হয় = গ্রুপ O
● মোটামুটি সম্পূর্ণ বা আদর্শ খাদ্য বলা হয় = দুধকে।
● তাপে কোন ভিটামিন নষ্ট হয় = ভিটামিন সি।
● কোন ভিটামিনের অভাবে মুখে ও জিহ্বায় ঘা হয় = ভিটামিন বি-2
● মাছের মাথা থেকে কোন ভিটামিন পাওয়া যায় = ভিটামিন এ
● দেহে আমিষের কাজ কি = দেহ কোষ গঠনে সহায়তা করে।
● কচু খেলে গলা চুলকায় কারন কচুতে থাকে = ক্যালসিয়াম অক্সালেট।
● শ্রবণ ছাড়াও কানের অন্যতম কাজ হলো = দেহের ভারসাম্য রক্ষা করা।
● কোনটির মাধ্যমে পেশিগুলো অস্থির সাথে সংযুক্ত থাকে = লিগামেন্ট।
● হৃদরোগের প্রধান কারণ = ধুম পান।
● বাংলাদেশের কোন বিজ্ঞানী কলিঙ্গ পুরস্কার লাভ করেন = ডঃ আবদুল্লাহ আল মুতী।
● কোন রাসায়নিক পদার্থটি ক্রোমোজমের অভ্যন্তরে থাকে না = লিপিড।
● প্লাস্টিড কোথায় থাকে = সাইটোপ্লাজমে।
● কোন পদার্থের জন্য ফুল রঙ্গিন ও সুন্দর হবে = ক্রোমোপ্লাস্ট।
● অস্থির বৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন = ক্যালসিয়াম।
● ক্লোরোফিলের মধ্যে কোন ধাতব আয়রনটি আছে = ম্যাঙ্গানিজ।
● কোন প্রানীটি মেরুদন্ডহীন প্রানী = কেচো।
● রক্ত জমাট বাঁধতে কোন ধাতুর আয়ন সাহায্য করে = ক্যালসিয়াম।
● ক্লোনিং এর মাধ্যমে জম্ম নেওয়া সর্বপ্রথম ভেড়ার নাম কি = ডলি।
● জন্ডিস রোগে দেহের কোন অংশ আক্রান্ত হয় = লিভার।
● ডিপথেরিয়া রোগে দেহের কোন অংশ আক্রান্ত হয় = গলা।
● কোনটি মৌলও নয় আবার যৌগও নয় = শর্করা।
● মাছ কোনটির সাহায্যে শ্বাসকার্য চালায় = ফুলকার সাহায্যে।
● বাতাসে অক্সিজেনের শতকরা হার কত = 20.71%
● বায়ু মন্ডলে কোন গ্যাসের পরিমাণ বেশি = নাইট্রোজেন।
● সুনামি এর প্রধান কারণ কি = সমুদ্র তলদেশে ভূমিকম্প।
● যানবাহনের কালো ধোঁয়া কিভাবে পরিবেশ দূষিত করে = বাতাসে কার্বন মনোঅক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি।
● কোনটি দিয়ে হাঁসের প্লেগ রোগ হয় = ভাইরাস।
● ভূপৃষ্ঠ থেকে বহু উপরে উঠলে শরীর ফেটে রক্ত বের হয় কেন = সেখানে বায়ুর চাপ কম থাকে।
● সূর্য রশ্মি থেকে কোন ভিটামিন পাওয়া যায় = ভিটামিন D.
● সবচেয়ে বেশি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল = পেয়ারা।
● ভূপৃষ্ঠে সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায় = অক্সিজেন।
● বর্ণালী ও শুভ্রা কি = উন্নত জাতের ভুট্টা।
● পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি কপি উৎপন্ন হয় = ব্রাজিলে।
● বাংলাদেশে একটি জীবন্ত জীবাশ্ম জ্বালানি = রাজ কাঁকড়া।
● পানির জীব হয়েও বাতাসে নিঃশ্বাস নেয় = শুশুক।
● সর্বপ্রথম যে উফশী ধান চালু হয়ে এখনো বর্তমান রয়েছে তা হলো = ইরি-8 (আট)।
● বাংলাদেশের দ্বিতীয় অর্থকরী ফসল = চা।
● কোনটি ম্যানগ্রোভ বন = সুন্দরবন।
● কোন জ্বালানি পোড়ালে প্রধানত সালফার ডাইঅক্সাইড গ্যাস বাতাসে আসে = ডিজেল।
● ফল পাকানোর জন্য দায়ী = ইথিলিন।
● উদ্ভিদের মূখ্য পুষ্টি উপাদান কয়টি = 9 টি।
● রূপালী ও ডেলফোজ কি = উন্নত জাতের তুলা।
● কৃষির রবি মৌসুম কোনটি = কার্তিক – ফাল্গুন।
● বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন খামার কোথায় অবস্থিত = সাভারে।
● বাংলাদেশে প্রথম কত সালে গ্যাস উত্তোলন করা হয় = 1957 সালে।
● কচু শাকে বেশী থাকে = লৌহ।
● বায়োগ্যাস তৈরির পর যে অবশিষ্টাংশ থাকে তা = সার হিসেবে ব্যবহার করা হয়।
● বায়োটেকনোলজির মাধ্যমে কোন হরমোন তৈরি হয় = গ্রোথ হরমন।
● বিষাক্ত নিকোটিন থাকে = তামাকে।
● ওজন স্তর সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে = ক্লোরিন।
● ভিটামিন ডি এর অভাবে কোন রোগ হয় = রিকেটস।
● ওজন স্তরের ফাটল ধরার জন্য মূখ্য দায়ী গ্যাস = ক্লোরোফ্লোরো কার্বন।
● অ্যানথ্রাক্স রোগের টিকা আবিস্কার করেন = লুই পাস্তুর।
● কোনটি থেকে CFC নির্গত হয় না = কাগজের মিল।
● নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ জৈব সার কোনটি = সরিষার খৈল।
● যখন সূর্য ও পৃথিবীর মাঝে চাঁদ থাকে তখন হয় = সূর্যগ্রহন।
● আলোর গতিতে চললে পৃথিবী থেকে চাঁদে পৌছাতে কত সময় লাগে = 1.5 সেকেন্ড প্রায়।
● এশিয়ার দক্ষিণভাগ দিয়ে গিয়েছে = কর্কটক্রান্তি রেখা।
● কোন শিলার মধ্যে ভাঁজ (Fold) ভালো দেখায় = পাললিক শিলা।
● প্রবল জোযারের কারন, এ সময় = সূর্য, চন্দ্র ও পৃথিবী এক সরলরেখায় থাকে।
● Longest day = 21 জুন।
● সূর্যের কয়টি গ্রহ = 8 টি।
● কোথায় দিনরাত্রী সমান = নিরক্ষরেখায়।
● গভীরতম মহাসাগর = প্রশান্ত মহাসাগর।
● পৃথিবীর আয়তনের তুলনায় সূর্যের আয়তন মোটামুটি কতগূন বড় = 13 লক্ষ গূন।
● তারা’দের জীবন প্রবাহের তৃতীয় অবস্থা কোনটি = হোয়াইট ডোয়ার্ফ।
● হ্যালির ধূমকেতু সর্বশেষ দেখা যায় = 1986 সালে।
● সৌর জগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ = বৃহস্পতি।
● “কসমিক ইয়ার” বলতে কি বুঝায় = ছায়াপথের নিজ অক্ষে আবর্তনকাল।
● নাসা কোন দেশের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা = যুক্তরাষ্ট্র।
● কোন নভোচারী সর্বপ্রথম পৃথিবী প্রদক্ষিণ করেন = ইউরি গ্যাগারিন।
● পৃথিবীর নিকটতম গ্রহ কোনটি = মঙ্গল।
● কোন কাল্পনিক রেখা থেকে অক্ষাংশ গণনা করা হয় = বিষুব রেখা।
● ভূপৃষ্ঠের সৌরদীপ্ত ও অন্ধকারাচ্ছন্ন অংশের সংযোগস্থলকে কি বলে = ছায়াবৃত্ত।
● মহাকাশে প্রথম কোন প্রাণী ঘটিয়েছিল = কুকুর।
● গ্যালিলিও কি = পৃথিবী থেকে পাঠানো বৃহস্পতির একটি কৃত্রিম উপগ্রহ।
● মহাশূন্যে প্রথম কোন দেশ কুকুর লাইকা পাঠিয়েছে = রাশিয়া।
● মানুষ প্রথম কবে চন্দ্রে অবতরণ করেন = 1969, 21 জুলাই।
● চাঁদের উপর সর্বপ্রথম পা রাখেন = নীল আর্মস্ট্রং।
● সমুদ্র বায়ু কখন কখন প্রবল বেগে প্রভাহিত হয় = অপরাহ্নে।
● সি.এফ.সি বায়ুমণ্ডলের কোন স্তর ক্ষতি করে = স্ট্রাটোস্ফেয়ার।
● কোন বায়ুমণ্ডলীয় স্তর থেকে বেতার তরঙ্গ প্রতিফলিত হয় = আয়নমন্ডল।
● শিমগাছ মাটিতে কোন উপাদান বৃদ্ধি করে = নাইট্রোজেন।
● বর্ণান্ধ লোকেরা কোন রং বুঝতে পারে না = লাল, নীল, সবুজ।
● কোন বস্তুর ত্বরণ বলতে বুঝায় = সময়ের সাথে বেগ বৃদ্ধির হার।
● পরম শূন্য তাপমাত্রায় কোন গ্যাসের আয়তন কত = শূন্য।
● কার্পাস তুলা থেকে কোন তন্ত্রুটি পাওয়া যায় = অ্যাসবেসটস।
● কোন পতঙ্গ তার নিজের ওজনের 50 গূন বেশি ওজন বহন করতে পারে = পিঁপড়া।
● সোয়াইন ফ্লুর ভাইরাস চিকিৎসা শাস্ত্রে কি নামে পরিচিত = এইচ 1 এন 1
● শীতকালে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ = কম থাকে।
● কোন দেশ পারমানবিক শক্তির অধিকারী নয় = জার্মানি।
● শালগাছ বায়ুমণ্ডলে কি ত্যাগ করে = অক্সিজেন।
● কোন প্রকারের মাটি চাষাবাদের জন্য সর্বাপেক্ষা উপকারী = দোঁআশ।
● কোন গাছের পাতা থেকেই গাছ জন্মায় = পাথরকুঁচি
● রূপান্তরিত কান্ড কোনটি = আলু।
● “মাশরুম” এক ধরনের = ফাঙ্গাস।
● গ্রীন হাউস গ্যাস নয় = নাইট্রোজেন।
● কোন খনিজের অভাবে গলগন্ড রোগ হয় = আয়োডিন।
● কোন প্রানীটি দাড়িয়ে ঘুমায় = ঘোড়া।
● বর্ষাকালে ভেজা কাপড় শুকাতে দেরি হয় কেন = বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকে ।
● ফ্যান চালালে আমরা ঠান্ডা অনুভব করি কারন = শরীর থেকে বাষ্পীভবনের হার বাড়িয়ে দেয়।
● একটি লাল ফুলকে সবুজ আলোতে কেমন দেখাবে = কালো।
● বস্তুর আপেক্ষিক ভর কে আবিষ্কার করেন = আর্কিমিডিস।
● পানির জীব হলেও বাতাসে নিঃশ্বাস নেয় = শুশুক।
● টেলিভিশন আবিষ্কার করেন = জন বেয়ার্ড।
● কোন কোষে একাধিক নিউক্লিয়াস থাকে = পেশি কোষে।
● কোষের মস্তিষ্ক বলা হয় = নিউক্লিয়াসকে।
● ধানের বাদামী রোগ হয় = ছত্রাক দ্বারা।
● কোন উদ্ভিদ দলের মূল, কান্ড, পাতা নেই কিন্তু ক্লোরোফিল আছে = শৈবাল।
● ফার্ন উদ্ভিদের জন্য কোনটি প্রযোজ্য = মূল, কান্ড, পাতা বিভক্ত অপুস্পক উদ্ভিদ।
● মাছ কোনটির সাহায্যে শ্বাসকার্য চালায় = ফুলকার সাহায্যে।
● মানুষের দেহে কয় জোড়া ক্রোমোজম থাকে = 23 জোরা।
● গোদ রোগের জন্য দায়ী কোন জীবাণু = ফাইলেরিয়া ক্রিমি।
● দেহের সবচেয়ে কঠিন অংশের নাম কি = এনামেল।
● ভয় পেলে গায়ের লোম খাড়া হয়ে যায় কোন হরমোনের অভাবে = অ্যাডরেনালিন।
● ফিতা কৃমি কোন ধরনের প্রানী = অন্তঃপরজীবী।
● ইস্ট কি = একটি ছত্রাক।
● মানব দেহের সর্ববৃহৎ অঙ্ক কি = ত্বক।
● মাইটোকন্ড্রিয়া অনুপস্থিত = ব্যাক্টোরিয়ায়।
● সাদা রক্ত বা বর্ণহীন বিশিষ্ট প্রানী = তেলাপোকা।
● কোন খনিজ লবনের অভাবে গাছের পাতা ও ফুল ঝরে যায় = ফসফরাস।
● যেসব ভাইরাস ব্যাকটেরিয়াকে আক্রমন করে তাদের বলে = ব্যাকটেরিওফাজ।
● কোষের মস্তিষ্ক বলা হয় = নিউক্লিয়াসকে।
● রক্তের লোহিত কনিকা তৈরি হয় = অস্থি।
● গাড়ীর ব্যাটারিতে কোন এসিড ব্যবহার করা হয় = সালফিউরিক।
● বরফ পানিতে বাসে কারণ বরফের তুলনায় পানির ঘনত্ব = বেশী।
● মানবদেহে শক্তি উৎপাদনের প্রধান উৎস = শ্বসন।
● কোন ডালের সংগে ল্যাথারাইজম রোগের সম্পর্ক আছে = খেসারি।
● কোনটির বিদ্যুৎ পরিবাহিতা সবচেয়ে বেশি = রূপা।
● জমির লবনাক্ততা নিয়ন্ত্রণ করে কোনটি = পানির সেচ।
● নবায়নযোগ্য জ্বালানি কোনটি = পরমাণু শক্তি।
● প্রাকৃতিক কোন উৎস থেকে সবচেয়ে বেশি মৃদু পানি পাওয়া যায় = বৃষ্টিপাত।
● ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে যে তথ্যটি সঠিক নয় = চিনি জাতীয় খাবার খেলে এ রোগ হয়।
● সুনামির কারন হলো = সমুদ্রের তলদেশে ভূমিকম্প।
● হাড় ও দাঁতকে মজুত করে = ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস।
● কোন খাদ্যে প্রোটিন বেশি = গরুর মাংস।
● প্রানী জগতের উৎপত্তি ও বংশ সম্বন্ধীয় বিদ্যাকে বলে = ইভোলিউশন।
● অতিরিক্ত খাদ্য থেকে লিভারে সঞ্চিত সুগার হলো = গ্লাইকোজেন।
● কোয়ান্টাম তত্ত্ব এর অপর নাম = ফোটন তত্ত্ব।
● মাছ থেকে আমিষ আসে = 60%।
● রেশম পোকা চাষের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি = সেরিকালচার।
● কৃষি উদ্যান বিষয়ক বিদ্যাকে বলে = হার্টিকালচার Horticulture.
# বিজ্ঞান_বিষয়ক_400_টি_স্পেশাল_MCQ
# শেষ_পর্ব_আজ_350_থেকে_400_পর্যন্ত
● “স্ট্রিট ভাইরাস” জীবাণু হলো = রেবিস রোগের।
● মহাশূন্য থেকে আগত রশ্মিকে বলে = কসমিক রশ্মি।
● গতিবিদ্যার জনক = গ্যালিলিও
● নিউক্লীয় ফিশন বিভাজন হলো = বিয়োজন প্রক্রিয়া।
● খর পানিতে উওম ফেনা দেয় = ডিটারজেন্ট।
● দূরত্বের সবচেয়ে বড় একক = আলোকবর্ষ।
● কোনটি রক্ত আমশয়ের জীবাণু = সিগেলা।
● অ্যালুমেনিয়াম সালফেটকে চলিত বাংলায় বলে = ফিটকিরি।
● লেড অ্যাসিটেড যে রোগের ওষুধ = চর্মরোগ।
● পারমানবিক বোমার চাইতে শক্তিশালী হলো = হাইড্রোজেন বোমা।
● একটি এটমে কণিকার সংখ্যা = 3 টি।
● নিউটন আবিষ্কার করেন = চ্যাডউইক।
● পরমাণুর নিউক্লিয়াসে থাকে = নিউট্রন ও প্রোটন।
● যৌগিক অণুবীক্ষণ যন্ত্র আবিষ্কার করেন = গ্যালিলিও 1610
● লোহার প্রধান আকরিক হলো = হেমাটাইট।
● চোখের সাথে মিল আছে = ক্যামেরার।
● দুধে থাকে = ল্যাকটিক এসিড।
● টেস্টটিউব পদ্ধতির জনক = রবার্ট এডওয়ার্ডস।
● জৈব রসায়নের জনক = ফ্রেডরিক উহলার।
● “গো বসন্ত” রোগ যে ভাইরাসে আক্রান্ত হয় = ভ্যাক্সিনিয়া ভাইরাস।
● 1 Faraday = 96500 Columb.
● কৃত্রিম জিন আবিষ্কার করেন = হরগোবিন্দ খোরানা।
● তামার সাথে কি মেশালে পিতল হয় = দস্তা।
● কণা তত্ত্বের প্রবক্তা কে = আইজ্যাক নিউটন।
● আলোর উৎপত্তির কারন = পরমাণুর ইলেকট্রন।
● কাঁচ তৈরির প্রধান কাঁচামাল হলো = বালি।
● “জলাতঙ্ক” এর ভাইরাস হলো = র্যাবিস ভাইরাস।
● সিলিকন বিদ্যুৎ = অপরিবাহী।
● এক আলোকবর্ষ = 9.461 × 10 কিমি।
● বিভাজন ক্ষমতা অনুসারে টিস্যু কত প্রকার = দুই প্রকার।
● সবচেয়ে সক্রিয় অধাতু = ফ্লোরিন (F)
● বায়ুর মাধ্যমে সংক্রামিত হয় = ইনফ্লুয়েঞ্জা।
● অধাতুসমূহ প্রধানত বিদ্যুৎ ও তাপ = অপরিবাহী।
● অবস্থান ও কাজের ভিত্তিতে কোষ কত প্রকার = দুই প্রকার।
● সিমেন্ট তৈরির কাঁচামাল = জিপসাম।
● ভাইরাসজনিত রোগ নয় = ডিপথেরিয়া।
● সবুজ কাচ পাওয়া যায় = ক্রোমিয়াম থেকে।
● বিদ্যুৎ বিলের হিসাব করা হয় = কিলোওয়াট ঘন্টা।
● জটিল অণুবীক্ষণ যন্ত্রে ব্যবহার করা হয় = দুটি উত্তল লেন্স।
● পেটা লোহা হলো = নরম।
● আমাদের দেশে যে প্রাকৃতিক গ্যাস পাওয়া যায় তাতে মিথেন থাকে = 95 – 99%
● দুটি তড়িৎদ্বার বিশিষ্ট বায়ুশূন্য বাল্বকে বলে = ডায়োড।
● স্টেপ আপ = নিম্নতর থেকে উচ্চতর।
● আবহাওয়া সম্পকিত বিজ্ঞান = মেটিওরোলজি।
● উষ্ণ ও শীতল স্রোতের মিলনে = কুয়াশা ও ঝড় হয়।
● সমুদ্র স্রোতের অন্যতম কারন = বায়ু প্রবাহের প্রভাব।
● বায়ু মন্ডলের স্তর কয়টি = 4টি।
● গ্লোবাল ওয়ারর্মিং এর জন্য দায়ী = co2
● নিচের কোনটি এসিড বৃষ্টির সাথে সংশ্লিষ্ট = H2So4.
● প্রধান গ্রীন হাউস গ্যাস কোনটি = Co2

________________________________________


আপনার ব্লগ দেখতে ক্লিক করুন এখানে

আপনার বয়স সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর পেতে ক্লিক করে সহযোগিতা নিন এখান থেকে


====================================================================
সকল সংবাদপত্রগুলির লিংক
====================================================================
প্রয়োজনীয়, জরুরি, গুরুত্বপূর্ণ কিছু যোগাযোগ নম্বরের লিংক
====================================================================
শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য, পুরষরা উঁকি দিতে চেষ্টা করবেন না . . . ২
====================================================================
অভ্র বা বিজয় সফটওয়্যার ব্যবহার করে ইন্টারনেট জগতে অতি সহজে বাংলা লেখার উপায় . . .
====================================================================
যারা অভ্রতে লেখেন তারা ক্লিক করতে পারেন লিংকটিতে
====================================================================
একহাজার . . . একটি টিপস
====================================================================
ঘুরে আসুন ইন্টারনেটের অন্ধকার দুনিয়ার ডীপ ওয়েব, ডার্ক ওয়েব সাইটগুলো থেকে।
====================================================================
ইংরেজি বিষয় সহ জেনে নিন প্রয়োজনীয়, গুরুত্বপূর্ণ, মজার কিছু তথ্য . . . ১
Share Button
Total Page Visits: 244 - Today Page Visits: 1